ক্ষোভে ফুঁসছেন তৃনমূল বিধায়ক মদন মিত্র, রোগী ভর্তি করাতে না পেরে কলকাতার পিজি হাসপাতালকে বয়কট করার ডাক!

তিনি ক্ষোভে ফুঁসছেন। শাসক তৃনমূল কংগ্রেসের বিধায়ক মদন মিত্র রোগী ভর্তি করাতে না পেরে এসএসকেএম হাসপাতাল বয়কটের ডাক দিলেন।
জানা গেছে, শুভদীপ পাল নামের এক যুবক দুর্ঘটনায় আহত হন। তাঁকে চিকিৎসার জন্য রাতেই নিয়ে যাওয়া হয় কলকাতার এসএসকেএমে। কিন্তু নানা ভাবে চেষ্টা করেও রোগীকে হাসপাতালে ভর্তি করানো যায়নি বলে অভিযোগ। এরপর রাতেই হাসপাতালের সামনে থেকে সংবাদমাধ্যমের মুখোমুখি হন তৃণমূল বিধায়ক। তিনি এসএসকেএমে দালালরাজ চলছে বলে অভিযোগ করেন। তাঁর দাবি, টাকা না দিলে এই হাসপাতালে রোগীর চিকিৎসা হয় না।

তৃনমূল কংগ্রেস বিধায়ক মদন মিত্রের ঘনিষ্ঠমহল সূত্রে খবর, আহত শুভদীপ নিজেও সরকারি হাসপাতালে ল্যাব টেকনিশিয়ানের কাজ করেন। শুক্রবার তিনি বাইক দুর্ঘটনার কবলে পড়লে এসএসকেএমে চিকিৎসার জন্য তাঁকে নিয়ে যাওয়া হয়। কিন্তু সেখানে পরিষেবা মেলেনি বলে অভিযোগ। এর পর হাসপাতালে যান মদন মিত্র নিজে। তিনি সাংবাদিকদের বলেন, ‘‘হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ ফোন ধরেননি। স্বাস্থ্যমন্ত্রী চন্দ্রিমা ভট্টাচার্যও জানান, যোগাযোগ করা যাচ্ছে না। অরূপ বিশ্বাসও চেষ্টা করেছিলেন। কিন্তু তাঁকে হাসপাতালের অ্যাসিস্ট্যান্ট সুপার মেসেজ করে বলেন, রোগীকে দেখা হয়েছে। এই মুহূর্তে তাঁকে ভর্তি করানোর ক্ষমতা নেই।’’

মদনের আরও অভিযোগ, ‘‘এটা যদি সিপিএমের আমল হত, আমি এক মিনিটের মধ্যে এই রোগীকে হাসপাতালে ভর্তি করিয়ে দিতাম। আমাদেরই যদি এই অবস্থা হয়, তা হলে গরিব মানুষের কী হবে?’’

এদিকে এসএসকেএম বয়কটের ডাক দিয়ে এ বিষয়ে স্বয়ং মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের হস্তক্ষেপ দাবি করেছেন মদন মিত্র। সাধারণ মানুষের কাছে তাঁর আর্জি, ‘‘যত দিন না মুখ্যমন্ত্রী হস্তক্ষেপ করছেন, তত দিন ‘পিজিকে না বলুন’।’’
রোগীকে অন্য হাসপাতালে চিকিৎসা করানোর ব্যবস্থা করবেন বলে জানিয়েছেন মদন। এবং তাঁর হুঁশিয়ারি, ‘‘রাস্তায় যেতে যেতে যদি এই রোগী মারা যায়, ১০ কোটি টাকা ক্ষতিপূরণ দাবি করব। আমি সেই মামলা লড়ব।’’

সর্বশেষ সংবাদ

জনপ্রিয় গল্প

সর্বশেষ ভিডিও