উমর খালিদের জামিনের শুনানি আগামী সপ্তাহ পর্যন্ত স্থগিত করল সুপ্রিম কোর্ট

 

ইউএপিএ মামলায় জেএনইউ-এর প্রাক্তন ছাত্র উমর খালিদের জামিনের আবেদনের শুনানি এক সপ্তাহের জন্য স্থগিত করেছে সুপ্রিম কোর্ট। এই মামলা ২০২০ সালের ফেব্রুয়ারিতে দিল্লি দাঙ্গার সাথে সম্পর্কিত। উমর খালিদের প্রতিনিধিত্বকারী সিনিয়র আইনজীবী কপিল সিবালের অনুপস্থিতির কারণে বিচারপতি বেলা এম ত্রিবেদী এবং দীপঙ্কর দত্তের বেঞ্চ এই মামলার শুনানি স্থগিত করেছে।
এর আগে, বিচারপতি প্রশান্ত কুমার মিশ্র ৯ আগস্ট খালিদের আবেদনের শুনানি থেকে নিজেকে প্রত্যাহার করেছিলেন। খালিদ ২০২২ সালের ১৮ অক্টোবর দিল্লি হাইকোর্টের সিদ্ধান্তকে চ্যালেঞ্জ করেছিলেন। বিচারপতি এএস বোপান্না এবং বিচারপতি প্রশান্ত কুমার মিশ্রের বেঞ্চে এই আবেদনটি আসে।
প্রসঙ্গত, হাইকোর্ট গত বছরের ১৮ অক্টোবর খালিদের জামিনের আবেদন নাকচ করে দেয়। আদালত বলে, তিনি অন্য আসামিদের সাথে ক্রমাগত যোগাযোগ করছেন। তাঁর বিরুদ্ধে আনা অভিযোগ প্রাথমিক ভাবে সত্য বলে মনে হচ্ছে। হাইকোর্ট আরও বলে যে, খালিদকে ইউএপিএ-এর অধীনে অভিযুক্ত হিসাবে বিবেচনা করা যেতে পারে।
উল্লেখ্য, উমর খালিদ এবং শারজিল ইমাম সহ আরও কয়েকজনের বিরুদ্ধে ২০২০ সালের ফেব্রুয়ারিতে দিল্লি দাঙ্গার মাস্টারমাইন্ড হওয়ার অভিযোগ রয়েছে। তাঁদের বিরুদ্ধে ইউএপিএ এবং আইপিসির অধীনে মামলা দায়ের করা হয়েছে। সিএএ এবং এনআরসির বিরুদ্ধে বিক্ষোভের সময় এই দাঙ্গা ছড়িয়ে পড়ে। এই দাঙ্গায় ৫৩ জন নিহত এবং ৭০০ জনের বেশি আহত হন।

২০২০ সালের সেপ্টেম্বরে দিল্লি পুলিশ জওহরলাল নেহরু বিশ্ববিদ্যালয় থেকে আদিবাসী ইতিহাসে ডক্টরেট উমর খালিদকে গ্রেপ্তার করে। খালিদ তাঁর জামিনের আবেদনে বলেছেন, সহিংসতায় তাঁর কোনও অপরাধমূলক ভূমিকা ছিল না বা তিনি মামলার অন্য কোনও আসামির সাথে সম্পর্কিত ছিলেন না। পুলিশ হাইকোর্টে খালিদের জামিনের আবেদনের বিরোধিতা করে বলেছিল, তাঁর বক্তব্য বিপজ্জনক। তিনি তাঁর বক্তব্যে বাবরি মসজিদ, তিন তালাক, কাশ্মীর, মুসলমানদের নিপীড়ন, সিএএ এবং এনআরসির মতো বিতর্কিত বিষয়গুলি উল্লেখ করেছেন।

সর্বশেষ সংবাদ

জনপ্রিয় গল্প

সর্বশেষ ভিডিও