বাংলায় আমাদের এবং সিপিআই(এম)-এর মধ্যে একজনকে বেছে নিতে হবে: কংগ্রেসকে বার্তা তৃণমূলের

 

পশ্চিমবঙ্গে কংগ্রেসের সাথে বন্ধুত্বপূর্ণ আসন ভাগাভাগির ফর্মুলা যে সম্ভব নয়, উপনির্বাচনের পর তা একপ্রকার স্পষ্ট তৃণমূল কংগ্রেসের কাছে। তাই ২০২৪ লোকসভা নির্বাচনকে মাথায় রেখে তৃণমূল কংগ্রেস তাদের এবং সিপিআই(এম)-এর নেতৃত্বাধীন বাম মোর্চার মধ্যে একটি দলকে অংশীদার হিসাবে বেছে নেওয়ার জন্য কংগ্রেসকে বার্তা পাঠানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছে৷ শনিবার দলীয় সূত্রে এমনটাই জানা গিয়েছে। সুত্রের খবর, কংগ্রেসের জাতীয় নেতৃত্ব বিরোধী জোটের অংশীদার তৃণমূল কংগ্রেসের প্রতি নরম অবস্থান গ্রহণ করা সত্ত্বেও প্রদেশ কংগ্রেসের তৃণমূল কংগ্রেসের জাতীয় সাধারণ সম্পাদক এবং দলের লোকসভা সদস্য অভিষেক ব্যানার্জিকে নিশানা করায় ক্ষুব্ধ তৃণমূলের শীর্ষ নেতৃত্ব।
নাম না প্রকাশ করার শর্তে দলের এক সিনিয়র নেতা এবং মন্ত্রিসভার সদস্য বলেছেন, “কংগ্রেস নেতা সি ভেনুগোপাল সহ বিরোধী জোট ইন্ডিয়ার অন্যান্য সদস্যরা অভিষেক ব্যানার্জির সাথে সংহতি প্রকাশ করা সত্ত্বেও, ১৩ সেপ্টেম্বর সমন্বয় কমিটির প্রথম বৈঠকে যোগ দিতে পারেননি তিনি। তার কারণ, তাঁকে এনফোর্সমেন্ট ডিরেক্টরেট (ইডি) জিজ্ঞাসাবাদের জন্য তলব করেছিল। এই পরিস্থিতিতে এখানকার গ্রেস নেতারা তাদের আক্রমণ অব্যাহত রেখেছে, বিশেষত সিপিআই(এম) নেতাদের মতো তাঁকে লক্ষ্য করে। সিপিআই(এম) এর রাজনৈতিক বাধ্যবাধকতা বুঝতে পেরেও কেন রাজ্য কংগ্রেস নেতারাও একই লাইন অবলম্বন করবেন? সুতরাং, এইরকম পরিস্থিতিতে, কংগ্রেসের জাতীয় নেতৃত্বকে সিদ্ধান্ত নিতে হবে যে তারা পশ্চিমবঙ্গে আমাদের সাথে নাকি সিপিআই(এম) এর সাথে যেতে চায়”।
জানা গিয়েছে, আসন ভাগাভাগি নিয়ে বাম দলগুলোর সঙ্গে যে কোনো সময় কোনো আলোচনা না করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে তৃণমূল কংগ্রেস নেতৃত্ব। পশ্চিমবঙ্গের শাসক দল কংগ্রেস নেতৃত্বকে জানাবে যে তারা মোট ৪২টি লোকসভা আসনের মধ্যে কতটি আসন ছেড়ে দেবে এবং তারপরে এটা কংগ্রেসের উপর নির্ভর করবে যে তারা সিপিআই(এম) এর সঙ্গে অবশিষ্ট আসনের মধ্যে কতগুলি আসন ভাগ করে নেবে।
সূত্র: সিয়াসত ডেইলি

সর্বশেষ সংবাদ

জনপ্রিয় গল্প

সর্বশেষ ভিডিও