কাবেরী বিরোধ নিয়ে কৃষকদের বেঙ্গালুরু বন্‌ধ: আটক ২০০ বিক্ষোভকারী

 

তামিলনাড়ুর সঙ্গে কাবেরী নদীর জল বণ্টন নিয়ে মঙ্গলবার কর্ণাটকের কৃষকরা রাজধানী বেঙ্গালুরুতে বন্‌ধ ডাকে। যার ফলে খোলা হয়নি স্কুল-কলেজ। হোটেল ও রেস্তোরাঁও বন্ধ ছিল। বিক্ষোভকারীরা তামিলনাড়ু থেকে আসা বাস চলাচলও বন্ধ করে দেয়।
প্রসঙ্গত, ১৩ সেপ্টেম্বর, কাবেরী জল ব্যবস্থাপনা কর্তৃপক্ষ একটি আদেশ জারি করেছিল যাতে বলা হয়েছিল যে কর্ণাটককে আগামী ১৫ দিনের জন্য কাবেরী নদী থেকে তামিলনাড়ুকে ৫ হাজার কিউসেক জল দিতে হবে। কর্ণাটকের কৃষক সংগঠন, কন্নড় সংগঠন এবং বিরোধী দলগুলি এই সিদ্ধান্তের বিরোধিতা করছে। কর্ণাটক ও তামিলনাড়ুর মধ্যে কাবেরী নদী সংক্রান্ত এই বিরোধ ১৪০ বছরের পুরনো। মঙ্গলবার সুপ্রিম কোর্টে আবারও এই বিষয়ে শুনানি হবে। গত শুনানিতে, আদালত কাবেরী জল ব্যবস্থাপনা কর্তৃপক্ষকে প্রতি ১৫ দিনে একটি সভা করার নির্দেশ দিয়েছিল।
এদিন বিক্ষোভ চলাকালীন একজন কৃষক আত্মহত্যার চেষ্টা করেন বলে জানা গিয়েছে। যদিও, পুলিশ তাকে বাধা দেয়। বন্‌ধ চলাকালে বিক্ষোভরত এক কর্মীকে পুলিশ হেফাজতে নেয়। বিভিন্ন সংবামাধ্যমে প্রকাশিত প্রতিবেদন অনুযায়ী,
মুখ্যমন্ত্রী সিদ্দারামাইয়া বলেন, বিরোধীরা রাজনীতি করছে। মুখ্যমন্ত্রী সিদ্দারামাইয়া বিরোধী দল ভারতীয় জনতা পার্টি এবং জনতা দল (ধর্মনিরপেক্ষ)-কে কাবেরী জল বিরোধ নিয়ে রাজনীতি করার জন্য অভিযুক্ত করেছেন। মাইসুরুতে সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলতে গিয়ে তিনি বলেন, “যে কোনো বন্‌ধ ডাকা যেতে পারে, তাতে আমাদের কোনো আপত্তি নেই। যদিও সুপ্রিম কোর্টের সিদ্ধান্ত আছে, কিন্তু আমরা তাদের কষ্ট দেব না, তারা বন্‌ধ ডাকুন।”
এদিকে, কর্ণাটকের ডেপুটি সিএম ডিকে শিবকুমার বলেছেন, “তামিলনাড়ুর জনগণ ১২৫০০কিউসেক জল চেয়েছে। বর্তমানে আমরা ৫০০০কিউসেক জল ছাড়ার অবস্থানে নেই।”
বন্‌ধের সময় তামিলনাড়ু-কর্নাটক সীমান্তে বিপুল সংখ্যক পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। একইসঙ্গে, যেকোনো পরিস্থিতি মোকাবিলায় বেঙ্গালুরুতে ১৪৪ ধারা জারি করা হয়েছে। এর অর্থ হল এক জায়গায় ৪ জনের বেশি মানুষ একত্রিত হতে পারবে না।

সর্বশেষ সংবাদ

জনপ্রিয় গল্প

সর্বশেষ ভিডিও