সিকিমের আরেকটি হ্রদ ভাঙনের মুখে: ৩ অক্টোবর বন্যায় এখনও পর্যন্ত মৃত ২৬, ভেসে গেছে ১২০০ বাড়ি

 

 

সিকিমের আরেকটি হ্রদ ভাঙনের মুখে। রাজধানী গ্যাংটক থেকে ১৩৫ কিলোমিটার দূরে অবস্থিত লাচেন উপত্যকার শাকো চু হ্রদের অবস্থা গুরুতর বলে জানা গিয়েছে। একে হিমবাহী হ্রদ বিস্ফোরণ বন্যার ঠিক আগের পরিস্থিতি বলা যেতে পারে। জেলা প্রশাসন ইতিমধ্যেই এই বিষয়ে জরুরি সতর্কতা জারি করেছে এবং সংশ্লিষ্ট এলাকা থেকে লোকজনকে সরিয়ে নিতে শুরু করেছে।

এর আগে, ৩ অক্টোবর তিস্তা নদীতে হওয়া প্রবল জলোচ্ছ্বাসের কারণে রাজ্যে ব্যাপক কশতি হয়েছে।মাঙ্গান, গ্যাংটক, পাকিয়ং এবং নামচি এই চারটি জেলা বন্যার কারণে সবচেয়ে বেশি ক্ষতিগ্রস্থ হয়েছে। সংবাদ সংস্থা পিটিআই-এর রিপোর্ট অনুযায়ী, এই বন্যায় ২৫ হাজার মানুষ ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। ১,২০০ ঘরবাড়ি ভেসে গেছে। বিভিন্ন এলাকায় সাত হাজার মানুষ আটকা পড়েছে। রিপোর্ট অনুযায়ী, এখনও পর্যন্ত ২,৪১৩ জনকে উদ্ধার করা হয়েছে। রাজ্য জুড়ে স্থাপিত ২২টি ত্রাণ শিবিরে ৬,৮৭৫ জন মানুষ বাস করছেন। একইসঙ্গে, শুক্রবার গভীর রাত পর্যন্ত এই দুর্যোগে প্রাণ হারানো মানুষের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ২৬। উদ্ধার অভিযান এখনও অব্যাহত রয়েছে।

মুখ্যমন্ত্রী পিএস তামাং বলেছেন, বরদাং এলাকা থেকে নিখোঁজ ২৩ জন সেনা সদস্যের মধ্যে ৭ জনের মৃতদেহ নদীর তলদেশ থেকে উদ্ধার করা হয়েছে। নিখোঁজ সেনাদের মধ্যে একজনকে উদ্ধার করা হয়েছে। ১৫ জন সেনাসহ মোট ১৪৩ জন এখনও নিখোঁজ রয়েছে। সিকিমে বন্যার কারণে দেশের অনেক শহরের সাথে সংযোগকারী রাস্তাগুলো ধ্বংস হয়ে গেছে। আইটিবিপি কর্মীরা উত্তর সিকিমে ১৬,০০০ ফুট উচ্চতায় আটকা পড়া ৬৮ জনকে উদ্ধার করেছে বলে জানা গিয়েছে।

সর্বশেষ সংবাদ

জনপ্রিয় গল্প

সর্বশেষ ভিডিও